অতি পোষ্যপ্রেমে মর্মান্তিক পরিণতি, আট তলা থেকে পড়ে মৃত্যু মহিলার

পোষ্যদের যত্নআত্তি করেই সময় কাটত তাঁর। যে বিড়ালটিকে উদ্ধার করতে গিয়ে তাঁর মর্মান্তিক মৃত্যু হল, সেই বিড়ালটিকে আনা হয়েছিল মাত্র দেড় মাস আগ! বিস্তারিত জানতে সম্পূর্ণ প্রতিবেদনটি পড়ুন...

অতি পোষ্যপ্রেমে  মর্মান্তিক পরিণতি, আট তলা থেকে পড়ে মৃত্যু মহিলার
(ফাইল চিত্র)

ট্রাইব টিভি ডিজিটাল: বিড়ালপ্রেম থেকে ভয়ংকর ঘটনার সাক্ষী থাকল শহর কলকাতা (Kolkata News)। টালিগঞ্জে কার্নিশে ওঠা পোষ্য বিড়ালকে ধরতে গিয়ে আটতলার ছাদ থেকে পড়ে মৃত্যু হল এক মহিলার। সোমবার সকাল ৮ টা নাগাদ এমনই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে, ৭০ লেক অ্যাভিনিউ এলাকায়। পুলিশ সূত্রে খবর,  মৃতের নাম অঞ্জনা দাস (৩৫)। দক্ষিণ কলকাতার অভিজাত বহুতল আবাসনে এমন আকস্মিক ঘটনায় শোকস্তব্ধ আশেপাশের এলাকার মানুষজন। 

জানা গিয়েছে, লেক অ্যাভিনিউর ফ্ল্যাটে মায়ের সঙ্গে থাকতেন বছর ৩৫-এর অঞ্জনা। স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদ মামলা চলছিল। স্বামী থাকেন বিদেশে। মাস দেড়েক ধরে একটি বিড়াল পুষে ছিলেন অঞ্জনা। সোমবার সকালে সেই বিড়াল খেলতে খেলতে সোজা ছাদে উঠে যায়। তার পিছন পিছন যাচ্ছিলেন অঞ্জনা। পুলিশ ও পরিবার সূত্রে দাবি, বিড়ালটি খেলতে খেলতেই ছাদ থেকে কার্নিশে নেমে পড়ে।

অঞ্জনাও কার্নিশে নামতে গিয়ে পা পিছলে সোজা নিচে পড়ে যান। ঘটনায় দ্রুত অঞ্জনাকে উদ্ধার করে এমআর বাঙুর (MR Bangur Hospital) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু চিকিৎসকরা জানিয়ে দেন, হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই মৃত্যু হয়েছে তাঁর। প্রতিবেশীরা জানাচ্ছেন, কয়েকটি পোষ্য ছিল অঞ্জনা দাসের। তাদের প্রতি অত্যন্ত দুর্বল ছিলেন। পোষ্যদের যত্নআত্তি করেই সময় কাটত তাঁর। যে বিড়ালটিকে উদ্ধার করতে গিয়ে তাঁর মর্মান্তিক মৃত্যু হল, সেই বিড়ালটিকে আনা হয়েছিল মাত্র দেড় মাস আগে। তার প্রতি অঞ্জনার দুর্বলতাই তাঁর মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়াল।  পুরো ঘটনা তদন্ত করছেন পুলিশ আধিকারিক ঘটনার নেপথ্যে অন্য কোনও কারণ রয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।